শুক্রবার, ২৫ নভেম্বর, ২০১৬

নতুন ব্যোমকেশ বক্সী

poster-of-byomkesh-bakshi-with-jishu-sengupt-by-anjan-dutt-film-reviewব্যোমকেশ বক্সী একজনই। শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায় যাকে তৈরী করেছেন তিনি। তাই নতুন ব্যোমকেশ বক্সী সম্ভব নয়। যা সম্ভব তা হল ব্যোমকেশ বক্সীর চেহারা পাল্টে দেয়া। নতুন ব্যোমকেশ বক্সী শিরোনামের কারণও তাই। অঞ্জন দত্তের পরিচালনায় ব্যোমকেশ বক্সী চরিত্রের অভিনেতা পাল্টেছেন, এসেছেন নতুন ব্যোমকেশ বক্সী, যীশু সেনগুপ্ত। সিনেমার নাম সিরিজের প্রথম সিনেমার নামেই - ব্যোমকেশ বক্সী!

শুক্রবার, ১৮ নভেম্বর, ২০১৬

এবার শবর : বড়পর্দার নতুন গোয়েন্দা

পশ্চিম বাংলার সাহিত্যের বেশ কিছু গোয়েন্দা চরিত্র রূপালী পর্দায় আবির্ভূত হয়েছেন। ফেলুদা সম্ভবত পায়োনিয়ার। সাম্প্রতিক সময়ে ব্যোমকেশ বক্সী এসেছেন। ফেলুদা বলতে গেলে তার স্রষ্টা সত্যজিৎ রায় এবং তার ছেলে সন্দ্বীপ রায়ের মধ্যেই আবর্তিত ছিলেন, ব্যোমকেশ বক্সী সে তুলনায় কয়েকজন পরিচালকের হাতে বিভিন্নরূপে উপস্থাপিত হয়েছেন। এছাড়া এসেছেন নীহাররঞ্জন গুপ্তের গোয়েন্দা কিরিটি রায়। সুনীল গাঙ্গুলির কাকাবাবুও রূপালী পর্দায় এসেছেন। বাজারে এ কয়জন গোয়েন্দা থাকার পরও যদি শবর দাশগুপ্ত নামের আরেকজন গোয়েন্দা উপস্থিত হয়, তাহলে 'এবার শবর' সিনেমার নাম হিসেবে যথার্থ। 

শুক্রবার, ১১ নভেম্বর, ২০১৬

গোয়েন্দা শবর দাশগুপ্ত

লালবাজারের গোয়েন্দা শবর দাশগুপ্ত, তার সাথে আমার পরিচয় অনেকটা হুট করে, অন্যান্য গোয়েন্দাদের সাথে পরিচয়ের মত নয়। এ দেশীয় তিন গোয়েন্দা, মিসির আলী, কুয়াশা কিংবা মাসুদ রানা অথবা ওই দেশের ফেলুদা কিংবা ব্যোমকেশ বা দূর দেশের শার্লক হোমস, জেমস বন্ড ইত্যাদি - এদের কারও সাথেই হুট করে পরিচয় নয়। তাদের নাম শুনেছি, তাদের সম্পর্কে অল্প বিস্তর জেনেছি, তাদের প্রতি আগ্রহ তৈরী হয়েছে এবং তারপর তাদের সাথে পরিচিত হয়েছি - সকলের সাথেই একই ফরম্যাটে সাক্ষাত। কেবল পশ্চিমবঙ্গের লালবাজারের গোয়েন্দা শবর দাশগুপ্তের সাথে আগে সাক্ষাত, তারপর পরিচয় এবং তারও পরে গিয়ে তার খ্যাতি সম্পর্কে জানতে পেরেছি। একটু ভেঙ্গে বললে, শবর দাশগুপ্তের স্রষ্টা শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায় যে কোন গোয়েন্দা চরিত্র সৃষ্টি করেছেন কিংবা শবর নামে যে কোন গোয়েন্দা আছে তা না জেনেই বই পড়তে গিয়ে শবরের সাথে সাক্ষাত এবং সাধারণ আর সব চরিত্রের মত একজন ভেবেই বিদায়। পরবর্তীতে আবার শবরের সাথে সাক্ষাতের মাধ্যমেই জানতে পারলাম - ইনি নিয়মিত গোয়েন্দা, হুটহাট করে তদন্তে নামেন নি। 

শনিবার, ৫ নভেম্বর, ২০১৬

আহলে হাদীস ও মাজহাব বিতর্ক

গুলশান তেজগাঁও লিংক রোডে একটা মসজিদ আছে, নিকেতন চার নাম্বার গেট থেকে বের হলে ডিএইচএল অফিসের বিপরীতে, নাম সম্ভবত বায়তুল ফালাহ। সেই মসজিদের ঘটনা, গেল রমজানের আগে। মাগরিব বা ইশার নামাজ চলাকালীন ইমাম সাহেব সূরা ফাতেহা পড়া শেষ করেছেন আর একজন মুসল্লি উচ্চস্বরে আমিন বললেন। নামাজ শেষে সেই মুসল্লিকে ধরা হল। নামাজের মধ্যে উচ্চস্বরে আমিন কেন বললেন এই বিষয়ে তর্কাতর্কির এক পর্যায়ে কেউ দুম করে ঘুষি দিয়ে মুসল্লির নাক ফাটিয়ে দিলেন, সাথে আরও কিছু কিল ঘুষিও যোগ হল। নিয়মিত মুসল্লিদের দয়ার শরীর, জানে না মেরে সেই মুসল্লিকে ছেড়ে দিয়েছিলেন, সম্ভবত বাকি জীবন ধরে যেন সেই শিক্ষা অন্যদেরকে জানাতে পারে এবং জান নিয়ে ফেরার সুযোগ পাওয়ায় আল্লাহর কাছে কৃতজ্ঞতা জানাতে পারে - এই সুযোগ দেয়ার জন্য। আমি এই ঘটনা নিজে দেখিনি, ওই মসজিদের নিয়মিত এক মুসল্লির কাছ থেকে শুনেছি। তিনি আরও জানিয়েছিলেন, পরবর্তীতে নাকি ওই মসজিদে এই 'আহলে হাদীস' তরিকার নিয়ম অনুসরণ না করার ব্যাপারে নির্দেশনা দিয়ে নোটিশ টাঙ্গানো হয়েছিল।

বুধবার, ২ নভেম্বর, ২০১৬

অন্ধ বালকের গান

শ্রীপুর যাবো। নতুনবাজার ব্রিজ পার হলেই গ্রাম বাংলা টেম্পু সার্ভিস পাওয়া যাবে, তায় চড়ে যেতে হবে শ্রীপুর।


ব্রিজ বলতে যা বোঝায় নতুনবাজার ঠিক সেরকম নয়। লোহার তৈরি পায়ে চলার রাস্তা, নিচে নবগঙ্গা নদীর খাল। এই ব্রিজ দিয়ে প্রচুর মানুষের যাতায়াত। ব্রিজের গোড়ায় পৌছাতেই কানে বাজল তীক্ষ্ণ কন্ঠে গাওয়া গান।

রবিবার, ১৬ অক্টোবর, ২০১৬

Tumbleweed থেকে কতটুকু নকল করেছে আয়নাবাজি?

কোরিয়ান সিনেমা টাম্বলউইড থেকে আয়নাবাজি কতটুকু নকল করেছে কোরিয়ান সিনেমা টাম্বলউইড থেকে আয়নাবাজি কতটুকু নকল করেছে? (ছবি: ফেসবুক হতে সংগৃহীত)

জনপ্রিয় বিজ্ঞাপন নির্মাতা অমিতাভ রেজার প্রথম চলচ্চিত্র আয়নাবাজি মুক্তি পেয়েছে দুই সপ্তাহ হল। মুক্তির আগে থেকেই আয়নাবাজি নিয়ে দর্শকদের মধ্যে প্রবল আগ্রহ তৈরী করতে সক্ষম হয়েছিলেন অমিতাভ রেজা এবং তার দল। ফলাফল হল - মুক্তির পর থেকে টানা তৃতীয় সপ্তাহে চলা আয়নাবাজি চলচ্চিত্রের বেশিরভাগ শো-ই হাউসফুল, দর্শকরা যে আগ্রহ নিয়ে আয়নাবাজি দেখতে যাচ্ছেন তার চেয়ে বেশি তৃপ্তি নিয়ে ফিরছেন (যা বাংলা চলচ্চিত্রে দুষ্প্রাপ্য!) এবং আয়নাবাজির যাত্রা আরও কয়েক সপ্তাহ অব্যাহত থাকার লক্ষণ সুস্পষ্টভাবে প্রতিভাত হয়েছে। গিয়াসউদ্দিন সেলিম নির্মিত একমাত্র চলচ্চিত্র মনপুরা'র পর সম্ভবত আয়নাবাজি-ই দ্বিতীয় যা (প্রায়) সর্বস্তরের দর্শকদের ভালোবাসা পেয়েছে। প্রচুর প্রসংশার পাশাপাশি অনেক অভিযোগও আছে আয়নাবাজি-র বিরুদ্ধে, এখন পর্যন্ত সবচে বড় অভিযোগ হল - এই ছবিটি কোরিয়ান Tumbleweed ছবির নকল। টাম্বলউইড এর নামই জানা ছিল, অভিযোগের প্রেক্ষিতে দেখা এবং আয়নাবাজি টাম্বলউইড থেকে কতটুকু নকল - তা এই পোস্টের আলোচ্য বিষয়।

শুক্রবার, ১৪ অক্টোবর, ২০১৬

জ্বর মাপা

fever-jorরিফাতের জ্বর আসছে গতরাতে। আজ সকালেই তার আর তার আম্মুর বাড়ি চলে যাওয়ার কথা ছিল। গতরাতে আমার কাছ থেকে বিদায়ও নিয়েছে। কিন্তু রাতেই জ্বর। ১০২ ডিগ্রি। বিদায় নেয়ার পরও যাওয়া হয় নাই বলে তারা একটু লজ্জিত, সামনে আসতে চায় না। কিন্তু জ্বরো ব্যক্তির মাথায় হাত দিয়ে জিজ্ঞেস করতে হয় - 'এখন কেমন লাগছে', তাই আমিই রিফাতের কাছে গেলাম।

বৃহস্পতিবার, ১৩ অক্টোবর, ২০১৬

ডিএসইউ বন্ধ প্রসঙ্গে

facebook

ডিএসইউ বা ডেসপারেটলি সিকিং আনসেন্সরড - এই গ্রুপের মেম্বার আমি কোনকালেই ছিলাম না। ফলে ওই গ্রুপে শেয়ার হওয়া বিষয়বস্তু কোনভাবেই আমার বিনোদনের মাধ্যম হয় নাই এবং এই কারণেই ডিএসইউ-র অ্যাডমিনরা গ্রেফতার হওয়ায় আমি তেমন কিছু ফিল করতেও পারতেছি না। আপনি খুব আহত হবেন জেনেও বলছি, ওই গ্রুপের এই অবস্থার পেছনে আপনারও একটা মিনিমাম কন্ট্রিবিউশন ছিল - গ্রুপের মেম্বারশিপ গ্রহণ করা। অশ্লীলতার চর্চা অশ্লীলতাই বাড়ায় - ব্যাপারটা সহজভাবে নেন - কাজে লাগবে।

বুধবার, ১২ অক্টোবর, ২০১৬

কারবালার ছবি দি মেসেঞ্জার

পোস্টার: দ্য মেসেঞ্জার অব ইমাম হুসাইন (ছবি: ইউটিউব) পোস্টার: দ্য মেসেঞ্জার অব ইমাম হুসাইন (ছবি: ইউটিউব)

যে যুগে বাংলাদেশ টেলিভিশন বা বিটিভি ছাড়া অন্য কোন বেসরকারী টিভি চ্যানেল ছিল না অথবা থাকলেও কেবলমাত্র শহর অঞ্চলের মধ্যে সীমাবদ্ধ ছিল সেই সময়ের কথা মনে করছি। আরবী মহররম মাস আসলেই বিটিভিতে বাংলায় ডাব করা একটি চলচ্চিত্র দেখানো হত। ছবির নাম দ্য মেসেঞ্জার / দ্য মেসেঞ্জার অব ইমাম হুসাইন (আ) অথবা বাংলায় 'দূত'। রাসূল (স) এর নাতি ইমাম হুসাইন (আ) এর পাঠানো গুরুত্বপূর্ণ এবং খুবই গোপনীয় একটি চিঠি নিয়ে একজন দূত কুফা'র দিকে যাচ্ছেন, শত্রুপক্ষের কাছে ধরা পড়ে গেছেন কিন্তু চিঠিটি নষ্ট করে ফেলেছেন এবং পরবর্তীতে শাস্তিস্বরূপ মৃত্যুবরণ করেছেন - এই ছিল দ্য মেসেঞ্জার চলচ্চিত্রের কাহিনী।

মঙ্গলবার, ১১ অক্টোবর, ২০১৬

গুলশান হামলা নিয়ে ফারুকী'র 'হলি বেকারী'

Interview of Mostofa Sarwar Farooki, 21st BIFF, Korea, Busan - 1 বুসান চলচ্চিত্র উৎসবে ফারুকী। ছবি: ভ্যারাইটি

মোস্তফা সরয়ার ফারুকী তার পরবর্তী চলচ্চিত্রের ঘোষনা দিয়েছেন। এই দেশে একটি অলিখিত সংস্কৃতি আছে - একটি সিনেমা মুক্তির পর পরবর্তী চলচ্চিত্রের ঘোষনা দেয়া। ফারুকী তার ব্যতিক্রম। তিনি একটি চলচ্চিত্রের কাজ শেষ করার আগেই পরের চলচ্চিত্রের ঘোষনা দেন এবং এবারও 'ডুব' শেষ করার আগেই পরের ছবির ঘোষনা দিয়েছেন। ছবির নাম 'হলি বেকারী'। নাম শুনে যা ধারনা করেছেন ঠিক তাই, গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারীতে হামলা নিয়ে নির্মিত হবে তার পরের ছবি।

বুধবার, ৫ অক্টোবর, ২০১৬

গুড মর্ণিং সিলেট

ঘুম থেকে উঠেই সান চিপ্সের একটা না-খোলা প্যাকেট পাওয়া গেল। মধ্যরাতে রেস্টুরেন্টে নামিনি বলে ভাগেরটা জমা ছিল। পাঁচ মিনিট বাদে বাস থেকে নামতেই ছিন্নমূল এক শিশুর আবদারে সান চিপ্সের হাত বদল হয়ে গেল। সিএনজিতে রওয়ানা হওয়ার আগমুহূর্তে বাসে রেখে আসা মানিব্যাগটা ফেরত পাওয়া গেল, আলহামদুলিল্লাহ।

মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬

বুকে পশম থাকা

: যাদের বুকে পশম থাকে না তারা পাষাণ হয়, তাই নারীরাও পাষান।

: আপনি বুকে পশমওয়ালা একজন নারী খুঁজে বের করেন, আমরা তার সাথেই আপনার বিয়া দিব। মানুষ হইতে হবে, কোন মহিলা গরিলা আনলে হবে না ;-)

চিঠির উত্তর দেয়া না দেয়া

ধরেন, আপনার খালার সাথে আপনার আম্মার কোন গ্যাঞ্জাম নাই। ফোনে তো রেগুলার কথাবার্তা হয়ই, বছরে দুই একবার আসা-যাওয়াও হয়। মানে, আপনার আম্মার প্রতি তার কোন ক্ষোভ নাই বৈলা আপনি যদি তারে আপনার বাড়িতে দাওয়াত দেন তাইলে সে না করবে ক্যান? কিংবা, আপনি যদি তারে দাওয়াত না দেন, তাইলে কি সে কোনদিন আপনার বাড়িতে আসবে না?

রবিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬

নোটিশঃ বিবাহ-পূর্ব অনুমতি

Bride and groom in traditional Indian wedding clothing

কোথাও কোথাও বিয়ে করার জন্য আগে যথাযথ কর্তৃপক্ষের নিকট লিখিতভাবে আবেদন করতে হয়। ব্যক্তিগতভাবে ফেসবুকে এই নিয়ম চালু করার চিন্তা ভাবনা করছি।

সোমবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬

হাসি থামায়ে একটু ভাবেন

ধরেন, আমেরিকার এক মরুভূমিতে আপনি ঘুরে বেড়াচ্ছেন। হঠাৎ দেখতে পেলেন কিছু একটা ধ্বংসস্তূপ। সামনে এগিয়ে দেখলেন - একটা স্পেসশিপ। কোন একসময় হয়তো মহাকাশ ভ্রমণে বেরিয়ে দুর্ঘটনায় পরে ধ্বংস হয়ে এখানে পড়েছিল, প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র সরিয়ে নেয়ার পর খোলটা পরে আছে শুধু। আপনার এবং আপনার সাথের মানুষদের কি আগ্রহ হবে না এই ভাঙ্গাচোরা পুরানো স্পেসশিপের দুই চারটা ছবি তোলার। দুই একজন হয়তো স্পেসশিপের চালকের অবস্থানে বসে পড়ে ছবিও তুলে ফেলবেন। তুলবেন না?


selfie-helicopter-bangladesh-sakib-al-hasan
সেই একই কাজ কিন্তু বিধ্বস্ত হওয়া হেলিকপ্টারের আশে পাশের সাধারণ কিছু মানুষ করেছে। তারা বিখ্যাত একটা হেলিকপ্টারে চড়েছে। বিখ্যাত দুই কারণে, প্রথমত: এই হেলিকপ্টারটা ধ্বংস হয়েছে এবং দ্বিতীয়ত: (যে কারণে ধ্বংসের ঘটনাটাও বিখ্যাত হয়েছে) এই হেলিকপ্টারে সাকিব আল হাসান চড়েছিল দূর্ঘটনার আগেই। এইরকম বিখ্যাত হেলিকপ্টারের সামনে গিয়া আমি আপনি নিজেরাই সেল্ফি তুলবো, তুলতেছিও, অথচ লুঙ্গি পড়া স্থানীয় কিছু লোক হেলিকপ্টারে বসে ছবি তুলছে, হোক তাদের একজনের মাথায় হেলমেট, তাতে আপনি হেসে কুটিকুটি হচ্ছেন?


হাসি থামায়ে একটু ভাবেন, স্বাভাবিকভাবে নেয়ার প্র‍্যাকটিস করেন, নাহয় স্পেসশিপের সাথে ছবি তুলতে দেখে আপনারে নিয়াও কিছু লোক হাসাহাসি করবে, তখন কেমন লাগবে সেইটা একটু ভাবেন।

মঙ্গলবার, ৭ জুন, ২০১৬

বইপড়া: ফুড কনফারেন্স

শুধু একটি বিষয়কে কেন্দ্র করে এতগুলো গল্প লিখে একটা বই প্রকাশ করা সম্ভব, ফুড কনফারেন্স পড়ার আগে তা কিছুটা অচিন্তনীয়ঈ ছিল। আবুল মনসুর আহমদ এর ফূড কনফারেন্স পড়ার পর নিজের দৈন্যতা নতুন করে উপলব্ধি হল। আরও উপলব্ধি হল, তৃপ্তি যতই হোক না কেন, এতদিনে বাংলা সাহিত্যের রস খুব সামান্যই আস্বাদন করতে পেরেছি।

রবিবার, ২৭ মার্চ, ২০১৬

আমাকে পরিচালক হিসেবে ভাড়া করা যায় না: কুয়েন্টিন টারান্টিনো

চলচ্চিত্র পরিচালক, প্রযোজক, চিত্রনাট্যকার ও অভিনেতা কুয়েন্টিন টারান্টিনো ১৯৬৩ সালের ২৭ মার্চ যুক্তরাষ্ট্রের টেনেসি রাজ্যের নক্সভিলে জন্মগ্রহণ করেন। ‘Reservoir Dogs’ সিনেমার মাধ্যমে সর্বপ্রথম তিনি সবার নজর কাড়েন। আর ১৯৯৪ সালে মুক্তি পাওয়া ‘Pulp Fiction’-এর মাধ্যমে বিশ্ব চলচ্চিত্রের ভাষাই পরিবর্তন করে দেন। সিনেমাটির জন্য তিনি সম্মানজনক পাম ডি’ওর পুরস্কার লাভ করেন। সেই থেকে একের পর এক সমাদৃত ও ব্যবসাসফল ছবি উপহার দিয়ে তিনি পরিণত হয়েছেন সিনেমা জগতের অন্যতম প্রভাবশালী ব্যক্তিত্বে। জিতেছেন দু’টি অস্কার, দু’টি গোল্ডেন গ্লোব ও দু’টি বাফটা।

অষ্টম সিনেমা ‘The Hateful Eight’-এর পোস্ট প্রোডাকশন যখন মাঝামাঝি পর্যায়ে কুয়েন্টিন টারান্টিনো চলচ্চিত্র নিয়ে তার ধ্যান-ধারণা ভাগ করে নিয়েছেন লেন ব্রাউনের সঙ্গে। সাক্ষাৎকারটি গত বছর (২০১৫ সালে) ২৪ আগস্ট নিউইয়র্ক ম্যাগাজিনে ছাপা হয়।