বুধবার, ২৬ নভেম্বর, ২০১৪

সিলেটের সহযোদ্ধা সুমন

1416847148


"নিজের একজন ভাইয়ের ওপর হামলার কথা শুনে আমি, সুমনসহ ১০-১৫ জন তাৎক্ষণিক ছুটে যাই। গিয়ে সেখানে হতবিহ্বল হয়ে পড়ি। সেখানে আগে থেকে ওত পেতে থাকা হানাদারা বাহিনী বৃষ্টির মতো গুলি চালায়। বৃষ্টির ঘনত্ব একটু কম ছিল, তাই ওদের একটি গুলি আমার সামনে থাকা সুমনের গায়ে লাগে। সে তৎক্ষণাৎ মাটিতে লুটিয়ে পড়ে।

সোমবার, ২৪ নভেম্বর, ২০১৪

জনসংখ্যা দিয়ে রেকর্ড তৈরী

জনসংখ্যা দিয়ে রেকর্ড তৈরী

গত কয়েক বছরে বাংলাদেশে 'সবচেয়ে বেশী' ধরনের বিশ্বরেকর্ড গড়ার একটা ট্রেন্ড দেখা যাচ্ছে। হালের সংযোজন সবচে বড় সেলফি। এই সকল রেকর্ড গড়ার পেছনে একমাত্র অবদান বাংলাদেশের মহামূল্যবান সম্পদ 'জনসংখ্যা'র। কেউ হয়তো খেয়াল করে নি এখনও - নাহয় বিশ্ব ইজতেমার সময় এক সাথে সবচে বেশী লোকের সবচে বেশী পরিমান হাগা-মোতার রেকর্ডও বইতে তুলে দেয়া সম্ভব।

জনসংখ্যার আধিক্য দিয়ে যে সব রেকর্ড হয় সেগুলো এতটাই ঠুনকো যে বছরখানেকের মধ্যেই সেটা ভেঙ্গে ফেলা সম্ভব এবং জনসংখ্যার আধিক্য দিয়ে যে রেকর্ড হয় সেটা যে ইতিবাচক কিছু নয় - সেটা বোঝার জন্য কেউ কি আয়োজকদের মাথার গু ফেলে দিয়ে ঘিলু ঢোকানোর রেকর্ড করবেন?

বৃহস্পতিবার, ২০ নভেম্বর, ২০১৪

অন্যরকম, দারুন এবং চমৎকার সিনেমা!

জ্ঞান হওয়ার পর থেকে বাংলাদেশের যত সিনেমার কথা শুনে আসছি - তার সবই 'অন্যরকম' এক গল্প নিয়ে 'দারুন' এবং 'চমৎকার' এক চলচ্চিত্র হওয়ার কথা থাকে। কিন্তু মুক্তি পাওয়ার পরে প্রায় সব সিনেমাই কিভাবে যেন সব বিশেষণ গিয়ে 'একঘেয়ে'র ঘরে জমা হয় :(

মঙ্গলবার, ১৮ নভেম্বর, ২০১৪

তিসির তেল

তিসির তেল 

ক্লাস সিক্স থেকে ক্লাস এইট পর্যন্ত আমার সবচে পছন্দের সাবজেক্ট ছিল কৃষি শিক্ষা। অন্য বিষয়ের পড়াশোনা ঠিকমত না হলেও এই বিষয়ে আমি সবসময়ই আপডেটেড থাকতাম। আমার এই কৃষি শিক্ষা প্রীতির কারণে আব্বা প্রায়ই ঘোষনা করতেন - আমার এইম ইন লাইফ নাকি 'মডার্ন' কৃষক হওয়া! এ ধরনের ঘোষনা নিতান্তই অমূলক, কারণ বাসার সাথেই বাগান থাকলেও মশার কামড় সহ্য করে ফুলের বাগান করার তেমন কোন চেষ্টা আমার মধ্যে ছিল না। অবশ্য কৃষি শিক্ষা পড়লেই যে বাগান এবং চাষবাস করতে হবে - আমি তেমনটা বিশ্বাস করি না। অবিশ্বাসের কারণ হল - কৃষি শিক্ষায় আমার সবচে পছন্দের চ্যাপ্টার ছিল গরু এবং মুর্গি পালন!

আ ট্রিপ টু নারিকেল জিঞ্জিরা

Travel-Story_A-trip-to-Nari

আশীর্বাদপুষ্ট যানজট এবং যাত্রা
‘ভাই, বাস তো দশমিনিট পরে ছেড়ে দিবে। আপনি সায়েদাবাদ চলে যান, ফকিরাপুল আসার দরকার নেই’ –মাঝের (মাজহার) ভাই যখন মোবাইলে আমাকে এই পরামর্শ দিচ্ছে আমি তখন রিকশায়, আধাঘন্টা ধরে শাহবাগের ট্র্যাফিক জ্যামে আটক হয়ে অক্ষম রাগে ফুঁসছি। যে রিকশায় বসে আছি সেটা ঢাকার ইঞ্জিনচালিত স্পোর্টস রিকশা নয় এবং আমার পাইলট মাইকেল শুমাখারও নন। সুতরাং দশ মিনিটে শাহবাগ থেকে ফকিরাপুলে পৌছানো আমার পক্ষে কোনভাবেই সম্ভব নয়। অথচ সায়েদাবাদ যেতে হলে শর্টকাটে গেলে ফকিরাপুল হয়েই যেতে হবে। বাস যদি সঠিক সময়ে ফকিরাপুল ছেড়ে যায়, তবে আমি সায়েদাবাদ পৌছানোর আগে বাস সেখান থেকেও ছেড়ে যাবে – যদি না পারভেজ ভাই কাউন্টারে বলে কিছু সময় অপেক্ষা করিয়ে রাখে। অতএব, রিকশায় বসে থেকে মোবাইলে অ্যাংরি বার্ডস খেলে ‘অ্যাঙ্গার’ (রাগ) দমন করা ছাড়া আমার আর কোন উপায় থাকল না – যা হোক হবে!

সোমবার, ১০ নভেম্বর, ২০১৪

সত্য ঘটনা অবলম্বনে

সত্য ঘটনা অবলম্বনে

"ছিলেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর একজন সার্জেন্ট। কোন এক কারনে চাকুরীচ্যুত হন তিনি। লন্ডন প্রবাসী এক নারীকে প্রতারণা করে হাতিয়ে নেন ৬৫ লক্ষ টাকা। কিন্তু পিছু লাগে পুলিশের স্পেশাল ব্রাঞ্চ। 'সাবেক' আর্মি অফিসারকে আটক করে 'কারেন্ট' পুলিশ অফিসাররা ঢাকা শহরে ঘুরে বেড়ায়, তার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে তুলে নেয় দেড় লক্ষ টাকা, ব্ল্যাংক চেকে সই করিয়ে নেয় কয়েকটি। তারপর ছেড়ে দেয়া হয় সেই আর্মির সার্জেন্টকে। পরদিন পুলিশ দলের একজন একাই খবর দেন আর্মি-কে, বাকী সদস্যদের ঠকিয়ে গুড় খাওয়ার চেষ্টা করেন, কিন্তু বাগড়া বসায় র‌্যাব। হাতে নাতে ধরে সেই পুলিশকে। র‌্যাবের যে টহল দলটি তাদেরকে হাতে নাতে ধরে ... ..."

মঙ্গলবার, ৪ নভেম্বর, ২০১৪

পিঁপড়াবিদ্যাঃ পিপীলিকার মত নয়

পিঁপড়াবিদ্যা Official Poster 

মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর পঞ্চম সিনেমা 'পিঁপড়াবিদ্যা' নানা কারণে গুরুত্বপূর্ন। প্রথমত, এটি তার প্রথম অ-বিতর্কিত চলচ্চিত্র, আগের প্রত্যেকটি চলচ্চিত্রই নানা কারণে সমালোচিত হয়েছিল। দ্বিতীয়ত, এই ছবির প্রচারে তিনি নানাবিধ উপায় অবলম্বন করেছেন। প্রায় পাঁচটি ধাপে ছবির প্রচারনা শেষেই তিনি তার চলচ্চিত্র মুক্তি দিয়েছেন। বাকী চলচ্চিত্রগুলো স্বনির্ভর ছিল, প্রচারণার উপর ভর করে দর্শকের কাছে পৌছুতে হয় নি। তৃতীয়ত, ইমপ্রেসের তৈরী চলচ্চিত্রের বাণিজ্যিক পরিবেশনার ক্ষেত্রে এই চলচ্চিত্র ব্যতিক্রম। সাধারণত ইমপ্রেসের ছবি একটি হলে মুক্তি পায়, কিন্তু এই ছবি প্রথম সপ্তাহেই ২৭টি হলে মুক্তি পেয়েছে। ভিন্ন ধারার চলচ্চিত্রগুলোও এই পথ অবলম্বন করতে সক্ষম হলে চিত্রটা ভিন্নরকম হতো।