টিভি সিরিয়াল দেখা আমার কাছে 'সিরিয়াস-পেইন' হিসেবে গন্য।

মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর টিভি সিরিয়াল '৪২০' এর সবগুলো পর্ব, সম্ভবত ৩৫টি' তিনদিনে দেখেছিলাম। অবস্থা এতটাই খারাপ হয়েছিল যে রাতে ঘুমের মধ্যেও কয়েকটা এপিসোড দেখেছি - উল্টা পাল্টা অবস্থায়। চিন্তা-ভাবনা সব কিছু গ্রাস করে ফেলেছিল ওই টিভি সিরিজ।

প্রিজন ব্রেক দেখিনি শুনে আমার জীবন যে কতবার 'ষোলআনাই বৃথা' হয়েছে - গুনতে চেষ্টা করিনি। ঘ্যানঘ্যানানি বন্ধ করতে প্রিজন ব্রেকের প্রথম সিজন দেখে ফেললাম - টানটানে উত্তেজনার ছবি কিন্তু রবারের মত ইলাস্টিক - অনর্থক ৬/৭টা পর্ব বাড়িয়ে লম্বা করা হয়েছে। বিরক্ত হয়ে সিজন ওয়ান শেষ করার পরপরই উইকিপিডিয়ায় গিয়ে সিজন টু আর থ্রি-র স্টোরি পড়ে ফেললাম - ব্যাস, প্রিজন ব্রেক দেখার পেইন আর নিতে হবে না।

ব্রেকিং ব্যাড নিয়ে হোমপেজ আর কান ভর্তি হয়ে থাকলেও মগজ পর্যন্ত পৌছাতে দেই নি সেদিন পর্যন্ত যেদিন নাফিস ভাই রিকমেন্ড করলেন। সেই রাতেই ডাউনলোড করে দেখা শুরু করলাম। বিরাট ভুল ডিসিশান! সব টিভি সিরিজ এক সিজনে একটা গল্প বলে - আর ব্রেকিং ব্যাড পাঁচ সিজন মিলিয়ে একটা গল্প!! গত দেড়মাস ধরে যেখানেই সময় পেয়েছি - অফিসে, গাড়িতে, ফুটপাথে, টয়লেটে, ঘুমাতে যাওয়ার আগে, ঘুম থেকে উঠার পরে - মোবাইলে এই সিরিজ দেখেছি। শেষ করতে না পারলে অন্য কিছু করাও যাচ্ছিল না।

এই সিরিজের মুন্সিয়ানা হল এর গল্পে। এত দারুনভাবে গিট্টু লাগিয়ে আবার খুলেছেন লেখকরা - স্যালুট! পুরো গল্পে একটা মাত্র ত্রুটি চোখে পড়ল - জেন চরিত্রের সমাপ্তি। লেখকরা ওই একটি জায়গায় গিট্টু খুলতে ব্যার্থ হয়েছিলেন - ফলে জোর করে তাকে ওই সমাপ্তিতে পৌছে দিয়েছেন। আর প্রধান দুই নারী চরিত্র - স্কাইলার এবং মেরি - এই দুই চরিত্র না থাকলে কি লেখকরা এত জটিল গল্প তৈরী করতে পারতেন? কিউরিয়াস মাইন্ড ওয়ান্টস টু নো - এ দুইজন নারীচরিত্রের চিত্রায়ন দেখে নারীবাদীরা কিছু বলেন নি?

গতকাল সকালে ব্রেকিং ব্যাড এর পূর্ণ সমাপ্তি ঘটল। আই অ্যাম আ ফ্রি বার্ড নাউ - উড়ে ঘুরে বেড়াচ্ছি! নতুন কোন টিভি সিরিয়াল দেখার সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে একশবার চিন্তা করতে হবে - পেইনমুক্ত জীবন নিশ্চিত করার দায়িত্ব আমারই। কানে গুঁজলাম তুলো - ছোট্ট ফাঁকা থাকবে, সেখান দিয়ে সামান্য শব্দ প্রবেশ করতে পারবে। কারণ 'শার্লক' এর পরের সিজন নাকি খুব শীঘ্রই মুক্তি পাচ্ছে।

এই একটা টিভি সিরিজের জন্য বছরখানেক অপেক্ষা করা কোন ব্যাপারই না। ওয়েল্কাম্ব্যাক শার্লক!