মঙ্গলবার, ২৫ মে, ২০১০

Paradise Now: একমাত্র সিনেমা যা দেখতে গিয়ে আমি মনিটরে লাথি কষিয়েছিলাম !

কারণ মনিটরের বাম কোনায় সুহা ছিল। এবং তার উপর মেজাজ এতটাই খারাপ হয়েছিল যে লাথি কষাতে ইচ্ছে হয়েছিল। ক্ষোভটা পুষে রাখতে পারি নাই, মনিটরেই মেরে দিসিলাম।


প্রিয় ব্লগার সৌম্য একবার একটা পোস্ট দিয়েছিলেন - অগুনিত মেহেরের গল্প যা স্টিকি করা হয়েছিল বেশ কিছুদিন। এছাড়াও রয়েছে সেতুর পোস্ট প্যালাসটাইনের গাজা উপতকার অর্থনীতির চাকা হলো মাটির নিচের মাইলের পর মাইল সুড়ঙ্গ পথ। বোধহয় এই দুটো পোস্ট দেখে তারপর সামনে এগোনো ঠিক হবে।

সেশনজ্যামের প্রতিবাদে

ঘটনাটা মর্মান্তিক!

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজনেস ফ্যাকাল্টিতে অবস্থিত এমবিএ ভবনের নয় তলা থেকে লাফিয়ে আত্মহত্যা করেছেন তানভীর রহমান নামে একজন ইএমবিএ শিক্ষার্থী। আত্মহত্যার বিষয়টি সুস্পষ্ট নয়, এটি হত্যাকান্ডও হতে পারে, তানভীরের আত্মীয়-স্বজন বলছেন এটি আত্মহত্যাই, কারণ তানভীর বেশ হতাশাগ্রস্থ ছিল এবং বিভিন্ন সময়ে আত্মহত্যার কথা সে বলেছিল। তানভীরের হতাশার কারণ হিসেবে তারা উল্লেখ করেছেন সরকারী কোন চাকরী না পাওয়াকে। একটু গভীরে ঢুকলেই জানা যাবে, সেশনজটের কবলে পড়ে সরকারী চাকুরীর উপযুক্ত হতেই বয়সের শেষ সীমায় চলে এসেছিলেন তানভীর, বয়স শেষ হয়ে যাবার পরেই আত্মহননের পথ বেছে নেন তিনি।

বুধবার, ১৯ মে, ২০১০

Patch Adams, Munna Bhai MBBS এবং একটি কপি পেস্টের সাইট


মুন্না ভাই এমবিবিএস দেখেছিলাম অনেক আগে, দু থেকে তিন বার। গল্পের অভিনবত্বটা খুব ভালো লেগেছিল, যে বিষয় গুলো তুলে ধরা হয়েছিল সেগুলো অসাধারণ এবং যুক্তিসঙ্গত। কিছুদিন পরে শুনতে পেয়েছিলাম যে এই গল্পটা নাকি হলিউড থেকে কিনে নেবার প্রস্তাব করা হয়েছে, ইংরেজীতেও এমন একটি মুভি তৈরী হবে। কেন জানি না, ভালো লেগেছিল একটু একটু।

মঙ্গলবার, ১১ মে, ২০১০

The Hurt Locker: The bomb to crush the invader’s mind-shells

The Hurt Locker won 82nd Academy Awards for best picture held on 7th March and through this achievement, Kathryn Begelow wrote her name as the first woman film director winning the Oscar. This is her eighth film after K19: The widow maker released in 2002 that also brought her critic's recognition for her brilliance in selecting the theme, the characters and the way of direction. This year with the film the Hurt Locker she expressed her strong presence in the film arena again.

শনিবার, ৮ মে, ২০১০

How to Train Your Dragon

সাম্প্রতিক সময়ের সবচে' সাড়া জাগানো অ্যানিমেশন মুভির নাম হাউ টু ট্রেইন ইয়োর ড্রাগন। ড্রিমওয়ার্কস অ্যানিমেশন কতৃক নির্মিত এই মুভিটিরও একটি ত্রিমাত্রিক ভার্সন মুক্তি দেয়া হয়েছে। প্রায় তিন সপ্তাহ ধরে টপচার্টে অবস্থান করা এই মুভিটির পরিচালক ডিন ডিব্লয় এবং ক্রিস স্যান্ডার্স। দুজনে এর আগেও একসাথে অ্যানিমেশন মুভি পরিচালনা করেছেন।


হাউ টু ট্রেইন ইয়োর ড্রাগন মুভিটি বর্তমান সময়ের নয়। অনেকটা রূপকথার কোন সময়ের কাহিনী এটি যার মূল চরিত্র হিকাপ। সে বার্ক দ্বীপের ভাইকিং দের রাজার ছেলে। ভাইকিংদের নিয়ম অনুযায়ী তাকে একটি ড্রাগন হত্যা করতে হবে। তাদের গ্রামের পাশেই বসবাস ড্রাগনদের, যারা মাঝে মধ্যে তাদের পশু খেয়ে যায়। একদিন হিকাপ একটি ড্রাগনকে গুলি করে কিন্তু কেউ তার কথা বিশ্বাস করে না। তাই সে একাই বনে যায় এবং আহত ড্রাগনকে খুজে পায়। কিন্তু হত্যা করার বদলে তাকে মুক্তি দেয়।

Animation Film: UP

বর্তমান সময়ে অ্যানিমেশন সিনেমা দর্শক তালিকা এবং সিনেমা শিল্পের এক বিশাল জায়গা দখল করে আছে। সিনেমায় সাফল্যের সব্বোর্চ্চ স্বীকৃতি অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ডস বা অস্কার প্রতিযোগিতায় অন্যান্য ক্যাটাগরীর পাশাপাশি অ্যানিমেশন শর্ট এবং ফিচার ক্যাটাগরীতেও পুরস্কার প্রদান করা হয়। অ্যানিমেশন সিনেমার ইতিহাস কিন্তু মোটেও নতুন নয়। সেই ১৯৩০ সাল কিংবা তার আগে থেকেই শর্ট ফিল্ম নির্মান হচ্ছে, এবং সেরা শর্ট তালিকায় অস্কার পুরস্কারের জন্য প্রতিযোগিতা করছে।

এখন পর্যন্ত দুটো অ্যানিমেশন মুভি মাত্র অস্কার প্রতিযোগিতায় শ্রেষ্ঠ মুভির তালিকায় অন্যান্য সিনেমার সাথে লড়াই করেছে। এদের একটি হলো ১৯৯১ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত বিউটি অ্যান্ড দ্য বিস্ট আর অন্যটি হলো গত বছর মুক্তি পাওয়া আপ।