রবিবার, ২৫ এপ্রিল, ২০১০

শনিবার, ২৪ এপ্রিল, ২০১০

ভগবান, বাংলাদেশী সিনেমাকে তুমি বাঁচিয়ে রেখো!

মুখ ও মুখোশ সিনেমার নির্মান কাহিনী জানেন? ১৯৫৬ সালে মুক্তি পেয়েছিল সিনেমাটা, কিন্তু নির্মান ইতিহাস কয়েক বছরের পুরানো। ১৯৫৩ সাল থেকে সিনেমা নির্মানের প্রস্তুতি চলছিল। কেন একটি সিনেমা বানানো? কেন বাংলাদেশেই একটি সিনেমা বানানো? কারণ পাকিস্তানী সরকার নানান উছিলা দেখিয়ে বাংলাদেশে একটি সিনেমা ইন্ডাস্ট্রি তৈরীর স্বপ্ন গুড়িয়ে দিচ্ছিল - অজুহাতগুলো খুবই অদ্ভুদ। বাংলাভাষায় সিনেমা নির্মিত হলে দর্শক দেখবে না, বাংলাদেশীরা সিনেমা নির্মান করতে জানে না, পূর্ব পাকিস্তানের আবহাওয়া সিনেমা নির্মান শিল্পের উপযোগী নয় ইত্যাদি ইত্যাদি। মুখ ও মুখোশ ছিল একটি প্রতিবাদ মাত্র। আব্দুল জব্বার খান দেশীয় লোকজনকে নিয়ে নির্মান করে দেখিয়ে দিলেন বাংলাদেশেও বাংলাদেশীদের জন্য সিনেমা নির্মান করা সম্ভব। যদিও সিনেমার কারিগরী বেশ কিছু অংশই পশ্চিম পাকিস্তানে করা হয়েছিল কিন্তু এ কথা অস্বীকার করা যায় না যে, মুখ ও মুখোশ একটি আন্দোলনের যাত্রা করেছিল।

শনিবার, ১০ এপ্রিল, ২০১০

Oscar 2010: The Hurt Locker & The Secret in Their Eyes

গত ৭ মার্চ তারিখে হলিউডের কোডাক থিয়েটারে হয়ে গেল সিনেমায় সর্বোচ্চ স্বীকৃতি একাডেমি অ্যাওয়ার্ডস বা অস্কারের ৮২তম আসর। সাধারণত প্রত্যেক বছর ফেব্রুয়ারি মাসের শেষ সপ্তাহে এই পুরস্কার প্রদান করা হলেও এ বছরই শীতকালীন অলিম্পিকের কারণে ব্যতিক্রম ঘটিয়ে মার্চের প্রথম সপ্তাহে এ আয়োজন করা হলো। এই আসরের আরেকটি নতুনত্ব হলো এ বছরই প্রথমবারের মতো শ্রেষ্ঠ সিনেমার জন্য পাঁচটির পরিবর্তে দশটি সিনেমাকে মনোনয়ন দেয়া হয়। জেমস ক্যামেরনের অ্যাভাটার সিনেমার দিকে সবাই তাকিয়ে থাকলেও তাকে পাশ কাটিয়ে শ্রেষ্ঠ সিনেমার পুরস্কার জিতে নিয়েছে ক্যাথেরিন বিগলো পরিচালিত দ্য হার্ট লকার। এ ছাড়াও সেরা বিদেশী সিনেমার ক্যাটাগরিতে পুরস্কার জিতে নিয়েছে আর্জেন্টিনার ছবি দ্য সিক্রেট ইন দেয়ার আইজ।

সোমবার, ৫ এপ্রিল, ২০১০

Kingdom of Heaven: ক্রুসেডারদের নিয়ে রিডলি স্কট


এপিক সিনেমা দেখার সময় একটা ভয় কাজ করে , মনে হয় এই মুভিটা হয়তো সত্যিকে লুকানোর জন্য এত আয়োজন করে তৈরী করা হয়েছে। অনেক গুলো ক্ষেত্রেই দেখেছি একটা মিথ্যা প্রচারনার কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে বিনোদনের অন্যতম মাধ্যম এই সিনেমাকে। সাধারণত এ ধরনের সিনেমা দেখার পরেই আমি উইকি এবং অন্যান্য সাইট ঘেটে পড়ে নিই বিভিন্ন সমালোচনাগুলো। একই ভয় কাজ করছিল 'কিংডম অব হ্যাভেন' দেখার সময়। কিন্তু সিনেমার শেষে যখন পরিচালকের নাম উঠল, রিডলি স্কট , বুঝলাম এতে কারিগরী কম থাকবে।

শনিবার, ৩ এপ্রিল, ২০১০

The Hurt Locker: সম্রাজ্যবাদীদের বিরুদ্ধে বোমা?

গত সাত ফেব্রুয়ারী অ্যাকাডেমী অ্যাওয়ার্ডস অনুষ্ঠানে অস্কার জিতে নিয়ে ক্যাথরিন বিগেলো ইতিহাসের পাতায় নাম লেখালেন প্রথম অস্কারজয়ী নারী চলচ্চিত্রকার হিসেবে। ক্যাথরিন নতুন চলচ্চিত্রনির্মাতা নন, ২০০২ সালে তিনি রাশিয়ান সাবমেরিন কে১৯ নিয়ে একটি চলচ্চিত্র নির্মান করেছিলেন, নাম - কে১৯: দ্য উইডোমেকার। পরিচালনার যোগ্যতা বোঝা যায় তখনই। সাত বছর পরে তার দ্য হার্ট লকার অস্কার জিতে নিল। বিশাল অর্জন - অন্যতম একটি কারন হলো এটি গতানুগতিক সিনেমার মতো হলিউড নির্ভর ছবি নয়, এটি একটি 'ইন্ডি' বা ইন্ডিপেন্ডেন্ট মুভি। ক্যাথরিন নিজেই ছিলেন এর প্রযোজক, পরবর্তীতে সামিট এন্টারটেইনমেন্ট এর পরিবেশনার ভার নেয়। মজার ব্যাপার হলো, দ্য হার্ট লকার হলো এপর্যন্ত সবচে' কম উপার্জনকারী অস্কারজয়ী চলচ্চিত্র।