সোমবার, ১৯ অক্টোবর, ২০০৯

সিনেমা “হীরক রাজার দেশে”র রিভিউ-কবিতা সিনেমা

hirak_rajar_deshe
১৯৮০ সালে সত্যাজিত রায় এর হীরক রাজার দেশে মুক্তি পায়। গুপী গাইন আর বাঘা বাইন কে নিয়ে নির্মিত এই চলচ্চিত্রটি পছন্দ নয় এমন লোক খুজে পাওয়া ভার। এই সিনেমাটি মুক্তি পাওয়ার পরে আনন্দবাজার পত্রিকায় একটি রিভিউ লেখা হয়েছিল। তবে মজার ব্যাপার হলো, এই রিভিউটি লেখা হয়েছিল কবিতার মতো ছন্দে ছন্দে, 'হীরক রাজার দেশে' সিনেমার ডায়লগের মতো মিলিয়ে মিলিয়ে ... কে লিখেছিল তা কিন্তু জানি না।

হীরক রাজার দেশে ফিল্ম দেখে আদ্যোপান্ত,
সত্যি কথা খুলেই বলি লেগেছে দুরন্ত।
মিল মিলিয়ে কথাবার্তা, ছড়ার ছড়াছড়ি,
গানের উপর গান জমেছে, উসুল গাটঁ এর কড়ি।

বুধবার, ১৪ অক্টোবর, ২০০৯

November Rain: Guns ‘N Roses এর দুর্দান্ত সৃষ্টি

Darashiko_47_1254923795_1-Novemberrain১৯৯২ সালে বিশ্ব মিউজিকে যুক্ত হলো আরেকটি কালজয়ী গান, গানের নাম নভেম্বর রেইন, ব্যান্ডের নাম গানস 'ন রোজেস। হার্ড রক ধাঁচের এই গানটি ওই বছরের মধ্যেই সারা বিশ্বব্যাপী ব্যাপক জনপ্রিয়তা লাভ করে। অবশ্য এই জনপ্রিয়তার মূল কারন একক ভাবে লিরিক, কিংবা গায়কী সুরকে নির্দিষ্ট করা যায় না, বরং গান রিলিজের কিছু পরেই এর মিউজিক ভিডিওটি মুক্তি পায় এবং বিশ্ব মিউজিকের তালিকাসমূহের শীর্ষে অবস্থান করে নেয় এবং এখনও স্থান দখল করে আছে।১৯৯২ সালের জুন মাসে মুক্তিপ্রাপ্ত ইউজ ইয়োর ইল্যুশন-১ (Use Your Illusion I) এর ১০ নম্বর ট্র্যাক নভেম্বর রেইন। গানটি লিখেছিল ব্যান্ডেরই সদস্য এক্সেল রস (Axl Rose)। পরবর্তীতে গানটির মিউজিক ভিডিওতে এক্সেল রস এবং ব্যান্ডের অন্যান্য সদস্যরা অভিনয় করে। প্রায় ১.৫ মিলিয়ন ডলার ব্যয়ে নির্মিত এই মিউজিক ভিডিওটি বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল মিউজিক ভিডিও গুলোর মধ্যে নবম অবস্থানে রয়েছে। নান্দনিক চিত্রগহন এবং গল্প বলার ঢং ভিডিওটিকে ইতিহাসের অংশ করে রেখেছে।

মুভি: The Machinist

Darashiko_47_1254751829_2-el-maquinista300x350

সামু ব্লগে কোন এক ব্লগারের পরামর্শে "দ্যা মেশিনিস্ট" মুভিটি সম্পর্কে জেনেছিলাম।

ক্রিশ্চিয়ান বেইল অভিনীত দারুণ এক সাইকোলজিক্যাল থ্রিলার 'দ্যা মেশিনিস্ট', স্প্যানিশে 'এল ম্যাকুইনিস্টা' । মেশিন অপারেটর ট্রেভর রেজনিক একাকী মানুষ, দিনকে দিন শুকিয়ে যাচ্ছে। If you were any thinner, you wouldn't exist.... এই ডায়লগটা অন্তত: দুবার শুনতে হয়েছে ট্রেভরকে। শুকিয়ে যাবার কারনটাও অদ্ভুত - গত একবছর ধরে ঘুমুতে পারছে না সে, তবে দুশ্চিন্তার কিছু নেই কারন ইনসমনিয়ার কারনে কেউ মরে নি এখন পর্যন্ত!

মুভি: The Motorcycle Diaries

কিংবদন্তী বিপ্লবী চে গুয়েভারাকে নিয়ে কম বেশী মোট ২৪ টি সিনেমা হয়েছে, টিভি আর সিনেমার পর্দায়। আর মোটরসাইকেল ডাইরিজ নিয়ে সামু ব্লগে কম বেশী দুচারটে পোস্ট পড়েছে, তার সাথে যোগ হলো আমার একটা।


তেইশ বছর বয়সে দুই বন্ধু বের হলো মোটর সাইকেল নিয়ে দেশ ভ্রমনে। চার মাসে ৮০০০ কিলোমিটার ভ্রমন করার উদ্দেশ্য থাকলেও একটি গৌন উদ্দেশ্য ছিল পেরুর কোন এক কুষ্ঠ আক্রান্ত এলাকায় কাজ করা। দুজনের একজন 'ফুসার' (চে) অন্যজন বয়সে কিছুটা বড় বন্ধু গ্রানাডো, পেশায় একজন বয়োকেমিস্ট। মোটরসাইকেল টা বিশাল, সেই সময় হিসেবে অনেক বড় বটে। বাবা মার কাছ থেকে বিদায় নিয়ে রওয়ানা হলো ভেনেজুয়েলার উদ্দেশ্যে, বাসনা গ্রানাডোর ত্রিশতম জন্মদিন ভেনেজুয়েলায় কাটানো, রুটটা খুবই ব্যতিক্রম। আন্দেজ পর্বতমালার পাশ দিয়ে চিলি, তারপর মরুভূমি পার হওয়া এবঙ পেরু হয়ে তারপর ভেনেজুয়েলা।

শুক্রবার, ২ অক্টোবর, ২০০৯

কুয়াকাটা: স্বপ্নপূরণ এবং স্বপ্নভঙ্গের গল্প


স্বপ্নসাধ





কুয়াকাটা যেতে চাই অনেকদিন ধরেই। যাওয়া হচ্ছিল না বিভিন্ন কারণে - বিশেষত: সময় আর সামর্থ্যের অভাবে। ঈদের পরে গেলাম পটুয়াখালীতে বন্ধু জহিরুল মুসাদের বাড়িতে। প্ল্যান করেই যাওয়া - পটুয়াখালী হয়ে কুয়াকাটা যাবো। কুয়াকাটার এত নাম শুনেছি কিন্তু ওখানে দেখার কি আছে তা-ই ভালো করে জানা নাই। আগে থেকে খোঁজ খবর করে গেলে সেই অনুযায়ী প্ল্যান ঠিক করা যায়। তাই একে ওকে জিজ্ঞেস করতে লাগলাম, কিন্তু কেউ-ই বিশেষ কিছু বলতে পারলো না, সি বিচের কথা ছাড়া। তারপরও যাই হোক .. যাবো বলে বেরিয়েছি, যাবোই।