সিনেমাটা ১৯৭৫ সালের। নাম শুনতে শুনতে কান ঝালাপালা।
ওয়ান ফ্লিউ ওভার দ্য কুক্কুস নেস্ট- জ্যাক নিকলসনের অভিনীত মুভি। মাইলোস ফোরম্যানের পরিচালনা।
সিনেমার কাহিনী এক মানসিক হাসপাতালকে ঘিরে। ম্যাকমারফি ওরফে নিকলসন একজন মানসিক রোগী হিসেবে চিকিৎসার জন্য আসে অথচ তার কথাবার্তা কিংবা আচরনে কোন অসুস্থতার ছাপ নেই। অথচ সে অসুস্থ। এখান থেকে যদি প্রমাণ করা যায় সে অসুস্থ তবে পাওনা শাস্তি ভোগ করতে হবে তাকে। হাসপাতালের মানসিক রোগীদের নিয়ে তার কান্ডকারখানা- সে এক অসাধারন মুভি।
হাসপাতাল কতৃপক্ষ চেষ্টা করে কঠোর নিয়মাবলীর মাধ্যমে সবাইকে সুস্থতা এনে দেয়ার। কিন্তু ম্যাকমারফির ভিন্ন পদ্ধতি রোগীদের মধ্যে এক ভিন্ন আমেজ এনে দেয়। রোগীদের মাঝে আছে চিফ, সে একজন ইন্ডিয়ান এবং বোবা। জড়বস্তুর মত আচরনকারী চিফকে ম্যাকমারফি সচল করে তোলে। প্ল্যান করে দুজনে মিলে পালাবে এই জেলখানা থেকে। সেই যে বাচ্চাদের ছড়া...'ওয়ান ফ্লিউ ইস্ট, ওয়ান ফ্লিউ ওয়েস্ট, ওয়ান ফ্লিউ ওভার দ্যা কুক্কুস নেস্ট' - ঠিক তেমনি চিফ পালাতে পারলেও পারলনা ম্যাক!


এখন পর্যন্ত আমেরিকার ওয়ান অব দ্যা বেস্ট মুভির তালিকায় এই মুভির অবস্থান অনেক আগে থেকে। মানসিক হাসপাতালের কাহিনী হলেও এই মুভিটি রূপক। হাসপাতালের কঠিন এবং নিষ্ঠুর নিয়মাবলীর মাধ্যমে ৫০ এর দশকে দেশের অবস্থা তুলে ধরা হয়েছিল একই নামের উপন্যাসে। অবশ্য উপন্যাসের অনেক কাটছাট হয়েছে সিনেমায়, তবে মূল বিষয়গুলো একই।


বাচ্চাদের জন্য ছড়া থেকে নামটি সংগৃহিত এবং শেষ পর্যন্তু অবশ্য কবিতার মতই দুজন মৃত্যুবরন করে এবং তৃতীয় জন কুক্কুস নেস্ট থেকে পালিয়ে যায়। এই তৃতীয় জন ছিল 'চিফ' যে বোবা এবং কালা র ভাব নিয়ে থাকত এবং মূল উপন্যাসে সেই কাহিনীকার।


সাড়ে চার মিলিয়ন ডলার ব্যায় করে তৈরীকৃত এই মুভিটি সেই সময়ে ৩০০ মিলিয়ন ডলার আয় করেছিল। জিতে নিয়েছিল একাডেমি এওয়ার্ডস এর প্রথম সারির পাচটি পুরস্কার।


স্যালুট করার মত একটি মুভি! মাস্ট সি


ডাউনলোড লিংক