Gold_bg_424329111

চার পেশীবহুল বডিগার্ডের মাঝে সোনালী পোশাকে যে ভদ্রলোক তার নাম পঙ্কজ পরখ। এই ছবির বিশেষত্ব হল - পরখের গায়ের শার্টটি ৪ কেজি সোনা দিয়ে নির্মিত। পঙ্কজ ভারতের মহারাষ্ট্রের প্রভাবশালী রাজনীতিক এবং শিল্পপতি।


২০১৩ সালে ভারতে বৈধ স্বর্ণের চাহিদা ছিল ৯৭৫ টন। ২০১০ সালে ৯৬৩.১ টন স্বর্ণ কিনে ভারত বিশ্বের এক নাম্বার স্বর্ণ-চাহিদার দেশ ছিল। ভারতের এই স্বর্ণের চাহিদার পেছনের কারণ সম্ভবত, আমার দৃষ্টিতে, তাদের বিকৃত রুচি - শিল্পপতি পরখ তার স্পষ্ট প্রমাণ। ৪৫-তম জন্মদিনকে 'বিশেষ' করে তুলতে তিনি স্বর্ণের জামা তৈরী করিয়েছেন পরখ, তারপর নির্বোধের মত গর্বভরে বলেছেন, "সাধারণত আমি কখনও ২-৩ কেজি ওজনের সোনার অলঙ্কার ছাড়া বাইরে যাইনি। বরাবরই আমি সোনার প্রতি আসক্ত। পাঁচ বছর বয়স থেকেই সোনায় আসক্তি শুরু হয় আমার। ২৩ বছর আগে আমার বিয়ের সময়ও আমি খুব বিব্রতকর অবস্থায় পড়ে যাই। তখন সবাই বলছিল, কনের চেয়ে আমার শরীরেই বেশি স্বর্ণালঙ্কার। কিন্তু আমি এই রাজকীয় ধাতু সত্যিই অনেক পছন্দ করি। " ভারতীয়দের এই বিকৃত-রুচি আরও স্পষ্ট হয় তাদের বিয়েগুলোতে এবং দেওয়ালী উৎসবে। প্রসঙ্গত - দেওয়ালী উৎসবে ভারতে স্বর্ণের চাহিদা সর্ব্বোচ্চ।


স্বর্ণ নিয়ে এই বিতং করার উদ্দেশ্য একটিই - ঢাকা এবং চট্টগ্রামের বিমানবন্দরে এত সোনা কেন ধরা পরে সেটা বুঝিয়ে দেয়া। টেলিভিশন-সিনেমার মাধ্যমে ভারতীয়দের স্বর্ণ-বিকৃতি সংস্কৃতির যেটুকু আমাদের সংস্কৃতিতে ইনফিল্টারেট করছে - তার কথা নাইবা বললাম।