ঢাকা সিটি কলেজের সাথের স্টার কাবাব এবং বিরিয়ানি হাউজ।

গত পরশু বুধবার রাতে আমাদের একটা অফিসিয়াল গেট টুগেদার ছিল। সব মিলিয়ে আমরা প্রায় ৩২ জন। জনপ্রতি কাচ্চি, বোরহানি আর একটা করে লাচ্ছি - খাবারের আইটেম এই।
প্রায় দুঘন্টার আড্ডাবাজি চললো। শেষ পর্যায়ে যখন ওয়েটারকে বিল নিয়ে আসার জন্য বললাম সে আমার কানে কানে বললো - বিল কি ভ্যাট সহ হবে নাকি ভ্যাট ছাড়া। আমি উ্ত্তর দেয়ার আগেই সে জানালো - ভ্যাটসহ প্রায় সাত/আটশ টাকা বেশী পড়বে।
টাকা দেবে অফিস, সুতরাং আমার আপত্তি কোথায়? তাই বললাম, ভ্যাটসহ বিল নিয়ে আসতে।

বেশ কিছু সময় পরে সে স্টার কাবাব ্ এবং বিরিয়ানীর প্যাডে হাতে লেখা একটা বিল নিয়ে আসলো - পাচ হাজার টাকার কিছু বেশী বিল। হাতে দিয়ে কানে কানে বললো - ভ্যাট ছাড়া করে এনেছি। প্রায় সাতশ টাকা ভ্যাট এসেছে। আমি একটু বিরক্ত হলাম- ভ্যাট ছাড়া বিল করছেন কেন?

ওয়েটার আমাকে বোঝানো শুরু করলো - এখানে কোন সমস্যা নেই তো। স্টার এর প্যাডে লেখা হয়েছে, সিগনেচার দেয়া আছে, ম্যানেজার নিজেই সেটা করেছেন এবং পেইড লেখা একটা সিল ও আছে সেখানে - সুতরাং কোন সমস্যা হবে না।

আমি নাছোড়বান্দা। টাকা গেলে আমার যাবে, আপনার সমস্যা কোথায়? অগত্যা তাকে একটি নতুন বিল নিয়ে আসতে হলো। মোট ৫, ৮৭০ টাকা।


প্রশ্ন হলো - আমরা নাহয়  অফিসিয়াল গেট টুগেদারের কারণে একটি বিল করে নিয়েছি এবং স্টার কতৃপক্ষ ভ্যাট ফাকি দেয়ার চেষ্টা করেও সমর্থ হন নাই, কিন্তু দৈনিক কত হাজার লোক সেখানে খাচ্ছে যারা বিলের ধারে কাছেও যান না? ৩০ জনে যদি প্রায় ৫০০ টাকা ভ্যাট ফাকি দেয়া যায়, তবে দৈনিক প্রায় আরও ৫,০০০ কাস্টমার থেকে প্রায় ৮,৫০০ টাকা ভ্যাট ফাকি দিচ্ছে প্রতিদিন। এটা আমার একটা আন্দাজ মাত্র। কিন্তু প্রকৃত্পক্ষে এর পরিমানটা আরও অনেক বেশী হবে নিশ্চিত। 

মিষ্টির দোকানে আমরা প্রায় সবাই ভ্যাটের রশিদ সংগ্রহের ব্যাপারে সচেতন থাকি (আসলেই কি?), রেস্টুরেন্টে খাবার বেলায় কি এই সচেতনতা বৃদ্ধি করা যায় না?